ক্যান্সার থেকে আপনাকে বাঁচাবে খেজুর, কিন্ত কীভাবে?

বিশ্বের তাবড় তাবড় ডাক্তার, সায়েন্সটিস্ট, ইনস্টিটিউট এই একটা রোগের পেছনে আদাজল খেয়ে লেগে থাকলেও খুব আশানুরূপ ফল শোনাতে পারেননি কেউই। এই মারনরোগের অব্যর্থ ওষুধ নিয়ে গবেষণা এখনো চলছে।

তবে বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে প্রতিদিন তিনটে করে খেজুর খেলে শরীরে এমন কিছু উপাদানের মাত্রা বৃদ্ধি পায় যে, তার প্রভাবে ক্যান্সার সেলের জন্মে নেওয়ার আশঙ্কা যায় কমে যায় প্রায় ৫০% এর মত।

ফলে ক্যান্সারের মতো মরণব্যাধি ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। এছাড়াও নিয়মিত খেজুর খাওয়া শুরু করলে দেহের ভেতরে পটাশিয়ামের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। এর প্রভাবে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে চলে আসতে সময় লাগে না।

আপনাকে সবসময় খেয়াল রাখতে হবে, শরীরে আয়রনের ঘাটতি যেন কখনো দেখা না যায়। আর এক্ষেত্রে খেজুর দারুনভাবে সাহায্য করতে পারে। কীভাবে? এই ফলটি আয়রন সমৃদ্ধি। তাই রোজ।এই ফল খেলে আপনি নিস্তার পাবেন অ্যানিমিয়ার হাত থেকেও।

রমজান মাস জুড়েই ইফতারে সবাই কম বেশি খেজুর খেয়ে থাকেন। মুসলিমদের জন্য খেজুর অনেক প্রিয় একটি খাবার। রোজা এলে ইফতারের খাদ্যতালিকায় এর স্থান থাকে সর্বাগ্রে। এ খেজুরের রয়েছে অসাধারণ কিছু পুষ্টিগুণ।

খেজুরে রয়েছে ভেষজ ও অনেক পুষ্টি উপাদানঃ

সারাদিন রোজা রাখার পর খানিকটা পুষ্টির ঘাটতি পূরণে সাহায্য করে। আমরা অনেকেই হয়তো জানি না যে, সৌন্দর্য বর্ধনে এবং শারীরিক সৌন্দর্য ধরে রাখতেও খেজুরের অনেক গুণ রয়েছে। চুল ও ত্বকের ক্ষেত্রে ম্যাজিকের মতো কাজ করে এই খেজুর।
খেজুরে রয়েছে পানি, খনিজ পদার্থ, আমিষ, শর্করা, ক্যালসিয়াম, আয়রণ, ভিটামিন ‘বি-১’, ভিটামিন ‘বি-২’ ও সামান্য পরিমাণ ভিটামিন ‘সি ফলিক অ্যাসিড, ম্যাগনেশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, সালফার, প্রোটিন। রোজায় দীর্ঘ সময় খালি পেটে থাকার কারণে দেহে গ্লুকোজের ঘাটতি দেখা দেয়। শরীরের এই প্রয়োজনীয় গ্লুকোজের ঘাটতি পূরণ করতে সাহায্য করে খেজুর। তাই প্রতিদিন ইফতারে খেজুর খাওয়া উচিত।

খেজুরের আরও ১০ টি উপকারী গুণ:

১) হজমশক্তি বর্ধক, যকৃৎ ও পাকস্থলীর শক্তিবর্ধক

২) খেজুর স্নায়ুবিক শক্তি বৃদ্ধি করে

৩) খাদ্যশক্তি থাকায় দুর্বলতা দূর করে

৪) খেজুর শরীরে রক্ত উৎপাদন করে

৫) হৃদরোগীদের জন্যও খেজুর বেশ উপকারী এই ফল

৬) রুচি বাড়ায়

৭) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

৮) দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়

৯) ফুসফুসের সুরক্ষার পাশাপাশি মুখগহ্বরের ক্যান্সার রোধ করে

১০) খেজুরে আছে ডায়েটরই ফাইবার; যা কোলেস্টেরল থেকে মুক্তি দেয়।

adminsashthokotha

Back to top