টক্সিন থেকে মুক্তি দিবে হিজামাঃ

আপনাকে কি দিন দিন ঔষধের পাওয়ার বাড়াতে হচ্ছে? আপনি কি চেঞ্জ্ ডিজিজেস অর্থাৎ আজ এ রোগ তো কাল অন্যরোগ পরেরদিন আরেক সমস্যা। পরের দিন অন্য রোগ দ্বারা আক্রান্ত? তাহলে এই পোস্ট আপনার জন্যই

কেন এমন হচ্ছে? এর অন্যতম কারণ হল টক্সিন

টক্সিন কি?
টক্সিন হলো এক ধরনের বিষ যা দিন দিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। যারফলে যেকোনো রোগ দ্রুত আক্রমণ করে বসে।

শরীরে কেন টক্সিন উৎপন্ন হয়:

Toxin বিভিন্ন কারনে হতে পারে। যেমন- অস্বাস্থ্যকর খাবারের দ্বারা, বিষাক্ত ফরমালিন এর মাধ্যমে, রাস্তায় চলা-ফেরার সময় নাক – মুখ দিয়ে ধুলাবালি পেঁটে চলে যাওয়ার মাধ্যমে, ধুমপান বা তামাক জাতীয় পদার্থের মাধ্যমে। এর প্রভাব এ আপনার শরীরে বিভিন্ন রোগ বাসা বাঁধবে এবং রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থাকে দূর্বল করে দেয়।

কিভাবে টক্সিন বের করবেন?

হিজামার মাধ্যমে আপনি সহজেই টক্সিন বের করে ফেলতে পারেন ।

কারা হিজামা গ্রহণ করবেন?

(1) যারা সহজে অসুস্থ হয়ে পড়েন!

(2) ধূমপায়ীরা যারা সিগারেটের দূষন দূরীভূত করতে চান।

(3) যারা শরীরের ভিতরের বিষাক্ত টক্সিন দূর করতে চান।

(4) যাদের জয়েন্টগুলোতে ব্যাথা,ঘাড় এবং ব্যাক পেইন আছে।

(5) যারা ধুলাবালিতে কঠোর পরিশ্রম করেন।

(6) যারা স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন।

(7) যাদের শারিরীক যন্ত্রনায় ঘুম হয় না বা কম হয়।

(8) বৃদ্ধ এবং অসুস্থ যারা।

(9) যারা রাস্তয় চলাফেরা করেন।

(10) যারা শরীরে বিষাক্ত টক্সিন আছে কিনা যাচাই করতে চান।

হিজামা করালে কি কোলেস্টেরলের সমস্যার কোন উপকার হয়?

উত্তর: – “হ্যাঁ, হয় !”

রক্তে কোলেস্টেরল বেশি থাকা একটা বড় ধরণের স্বাস্থ্য ঝুকি। এই কোলেস্টেরল গুলোই একসময় রক্ত নালীতে জমা হয়ে হয়ে স্ট্রোকস বা হার্ট এ্যটাকের মত বড়সড় ঘটনা ঘটে যায়। আমাদের পরিবার, পরিচিত সার্কেলে কোলেস্টেরল নিয়ে সমস্যায় থাকেন এমন কাউকে খুঁজে পেতে খুব একটা বেগ পেতে হয় না। সমস্যাটা এতটাই কমন। কোলেস্টেরলের সমস্যার জন্য তারা নিয়মিত ঔষধ খেয়ে যাচ্ছেন, খাবার নিয়ন্ত্রন করছেন। এর মাধ্যমেই এর নিয়ন্ত্রন নেবার চেষ্টা করছেন। কমিয়ে সহনীয় পর্যায়ে রাখছেন।

কিন্তু জানেন কি, হিজামার মাধ্যমেও আপনি কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রনে রাখতে পারবেন?

কোলেস্টেরলের সমস্যা বলতে আমরা বুঝি রক্তে লিপিডের পরিমাণ বেশি। এর প্রধানত ৪ টা প্যারামিটার আছে। Total cholesterol, Triglyceride(TG), LDL-Cholesterol এবং HDL-Cholesterol. এর মধ্যে প্রথম ৩টা কম থাকা ভালো এবং শেষেরটা বেশি থাকা ভালো।

রিসার্চে দেখা গিয়েছে হিজামার প্রথম ২ সপ্তাহের মধ্যেই প্রথম তিনটা প্যারা মিটার উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমে এসেছে এবং গুড কোলেস্টেরল বা HDL-Cholesterol এর মাত্রা বেড়েছে।

adminsashthokotha

Back to top